চুলে মেহেদি পাতা লাগানোর নিয়ম - অ্যালোভেরা জেল চুলে ব্যবহারের নিয়ম

চুলের যত্নে নিম পাতার উপকারিতাপ্রিয় পাঠক বন্ধু আপনি কি আপনার চুল নিয়ে অনেক দুশ্চিন্তায় রয়েছেন? আপনি কি চাচ্ছেন আপনার চুলকে সিল্কি করতে?  অ্যালোভেরা এবং মেহেদি পাতা দিয়ে খুব সহজেই আপনি আপনার চুল পড়া দূর করতে পারবেন এবং আপনার চুলকে সিল্কি করতে পারবেন। আজকের আর্টিকেলটির মাধ্যমে আমি আপনাদেরকে জানাবো চুলে মেহেদি পাতা লাগানোর নিয়ম এবং এলোভেরা জেল চুলে ব্যবহারের নিয়ম।

চুলে মেহেদি পাতা লাগানোর নিয়ম - অ্যালোভেরা জেল চুলে ব্যবহারের নিয়ম

চুলকে সিল্কি মসৃণ এবং ঘন রাখতে প্রয়োজন চুলের সঠিক যত্ন। তাইতো আজকের আর্টিকেলটির মাধ্যমে আমি আপনাদেরকে জানাবো যে চুলের গোড়ার শক্ত করতে মেহেদি কিভাবে ব্যবহার করতে হবে এবং এলোভেরা ও লেবু দিয়ে কিভাবে চুলের যত্ন করা যায়। সদ চুল পড়া সংক্রান্ত সকল তথ্য জানতে আজকের এই আর্টিকেলটা আপনার অনেক উপকারে আসবে তাই পুরো আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে অনুরোধ রইলো।

পোস্ট সুচিপত্রঃ চুলে মেহেদি পাতা লাগানোর নিয়ম - অ্যালোভেরা জেল চুলে ব্যবহারের নিয়ম

.

কালো চুলে মেহেদি দিলে কি হয়?

আমরা সকলেই জানি যে চুলে মেহেদি দিলে চুলের গোড়ার শক্ত হয় এবং চুলে পুষ্টি সরবরাহ  হয়। কিন্তু অনেকেই প্রশ্ন করেন যে কালো চুলে মেহেদি দিলে কি হয়?  মেহেদির শুধু পাকা চুলে দিয়ে লাল করতে হবে সেরকম কোন কথা নেই তাই আপনাদের এই ধারণাটি নিয়ে আজকে আলোচনা করব।

কালো চুলে মেহেদি দিলে মেহেদি পাতার রস চুলের গোড়ার গভীরে পৌঁছে। কালো চুলের গোড়াতে প্রয়োজন অধিক পরিমাণ অক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন সি। ভিটামিন সি এবংঅ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এর অভাবে চুলের গোড়া দুর্বল হয়ে পড়ে যার কারণে কালো চুল অনেক উঠতে থাকে।

যদি নিয়মিত কালো চুলে মেহেদি পাতা বেটে অথবা মেহেদি পাতার রস দেওয়া হয় তাহলে কালো চুল ঘন মসৃণ হবে এবং চুলের গোড়া শক্ত হবে। অধিক পরিমান চুল পড়া দূর করে মেহেদী কারণ মেহেদি পাতার নির্যাস বা মেহেদি পাতার রস চুলের গভীরে গিয়ে ভিটামিন, আন্টি ব্যাক্টেরিয়া,এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এর সরবরাহ করে। 

মেহেদি পাতা চুলে দিলে কি হয়

নারীদের সৌন্দর্যের প্রকাশ হলো তার চুল। একটি নারী দেখতে যেরকমই হোক না কেন তার মাথার চুল তার সৌন্দর্যকে আরো দুই গুণ বৃদ্ধি করে। সৃষ্টির আদিকাল থেকেই মানুষ প্রাকৃতিক উপায়ে তার চুলকে সুস্থ মজবুত ঘন এবং কালো করে যত্ন করেছে।

আরও পড়ুনঃ রূপচর্চায় বেসনের উপকারিতা 

প্রাকৃতিক উপায়ে চুলকে সৌন্দর্য করার উপকরণের মধ্যে একটি প্রধান উপকরণ হল মেহেদী পাতা। কিন্তু অনেকেই জানেন না যে মেহেদি পাতা তুলে দিলে কি হয় এবং চুলে মেহেদি পাতার লাগানোর নিয়ম যার ফলে তারা তাদের চুলের ক্ষতি করে ফেলে ভুল নিয়মে মেহেদি লাগানোর কারণে।

আপনাদের মনে নিশ্চয়ই প্রশ্ন আসছে যে মেহেদী পাতা তুলে দিলে কি হয়?  হ্যাঁ বন্ধুরা চলে যাবতীয় সমস্যা যেমন চুল পাতলা হয়ে যাওয়া চুলের গোড়া দুর্বল হয়ে যাওয়া মাথায় অধিক পরিমাণ খুসকে মাথা ঘোরা যা এই সকল সমস্যার প্রধান সমাধান হলো মেহেদী পাতা। মেহেদি পাতা বেটে চুলে দিলে চুল হয় ঝলমলে এবং ঘন কালো। 

মেহেদি পাতাতে উপস্থিত এন্টি অক্সিডেন্ট চুলের গভীরে গিয়ে চুলের গোড়াতে শক্তি সরবরাহ করে এবং চুলকে গোড়া থেকে মজবুত করে যার ফলে চুল পড়ার পরিমাণ কমতে থাকে। এছাড়াও অনেকের মাথা যন্ত্রণা মাথা চুলকানো সমস্যা থাকে যার কারণে তার চুল পড়ে কিন্তু মেহেদী পাতাতে উপস্থিত এন্টি অক্সিডেন্ট এবং প্রোটিন চুলের গোড়ার মাধ্যমে প্রবেশ করে মাথাকে ঠান্ডা এবং শীতল রাখে

আশা করছি এতক্ষণে আপনারা আপনাদের প্রশ্নের উত্তর পেয়ে গেছেন যে মেহেদী পাতা তুলে দিলে কি হয়। বন্ধুরা মেহেদী পাতা চুলে দিলে আপনার চুল আগের থেকে অনেক স্বাস্থ্যকর হবে এবং আপনার চুল ঘন কালো লম্বা মজবুত এবং গোড়া থেকে শক্ত হবে তাই আপনিও প্রাকৃতিক উপায়ে আপনার চুলের যত্ন শুরু করুন।

চুলের গোড়া শক্ত করতে মেহেদি

চুল পড়া দূর করতে প্রয়োজন চুলের গোড়াকে শক্ত করা। এখন অনেকেই প্রশ্ন করেন যে আপু কিভাবে চুলের গোড়া শক্ত করব এবং চুলের গোড়া শক্ত করার জন্য তারা বিভিন্ন রকমের শ্যাম্পু ভিটামিন চুলের প্রয়োগ করে কিন্তু কোন কাজ হয় না। কারণ চুলের গোড়াকে শক্ত করতে প্রয়োজন চুলের গভীরে পুষ্টির সরবরাহ।

চুলের গভীরে পুষ্টির সরবরাহ করতে প্রয়োজন মেহেদি পাতা ।এখন অনেকেই ভাবতে পারে যে চুলের গোড়া শক্ত করতে মেহেদী কি ভূমিকা রাখে? হ্যাঁ বন্ধুরা চুলের গোড়াকে ভেতর থেকে শক্ত করতে প্রয়োজন মেহেদি পাতার নির্যাস অথবা মেহেদী পাতা বাটা।

মেহেদি হল একটি প্রাকৃতিক ফাঙ্গাস বিরোধী উপাদান এবং মেহেদী হচ্ছে অধিক পরিমাণ এন্টি অক্সিডেন্ট ভিটামিন সি এবং প্রোটিন সমৃদ্ধ যা চুলের গভীরে প্রবেশ করে চুলের গোড়াকে করে মজবুত এবং শক্ত। চুলের গোড়াতে শক্তি প্রদানের ফলে চুল হয় ঘন কালো মজবুত এবং লম্বা

চুলে মেহেদি পাতা লাগানোর নিয়ম

চুলের গোড়া শক্ত করতে মেহেদি পাতা লাগানো এবং চুলকে কালো মজবুত করতেও মেহেদি পাতার লাগানোর জন্য আমাদের প্রয়োজন সঠিকভাবে তুলে মেহেদী পাতা লাগানোর নিয়ম জানা। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা সঠিকভাবে চুলে মেহেদি পাতা লাগানোর নিয়ম।

আজকে আমি আপনাদেরকে জানাবো যে কিভাবে আপনি বাড়িতে বসেই চুলে মেহেদী পাতা লাগিয়ে আপনার চুলকে করে তুলতে পারেন নজর কাড়া এবং আকর্ষণীয়। তাহলে চলুন এখন জেনে নেই যে চুলে মেহেদি পাতা লাগানোর নিয়ম,

  • মেহেদি পাতা মেহেদি গাছ থেকে তুলে এনে ভালোভাবে পানি দিয়ে ধুয়ে পাঠাতে বেটে নিতে হবে হালকা পানি দিয়ে এবং দেখতে হবে যেন মেয়েদের মিশ্রণটা অনেক মলিন হয়।
  •  এবার আপনি আপনার চুলকে হালকা ভাবে পানি দিয়ে হাত ভেজা করে নেবেন।
  •  আপনার চুল যখন আসবে যা হয়ে যাবে তখন ব্রাশ দিয়ে অথবা হাত দিয়ে আলতো ভাবে পুরো মাথার চুলে মেয়েদের প্রলেপ দিবেন।
  •  মেহেদির প্রলেপ এমন ভাবে লাগাতে হবে যেন পুরো সম্পূর্ণ মাথাতে মেহেদির নির্যাস ঢুকে।
  •  মেহেদি দেয়া শেষে আপনি বারবার বিলকেটেদেখবেন যে চুলের গোড়াতে মেহেদি গেছে কিনা কারণ চুলকে ভেতর থেকে মজবুত করতে চুলের গভীরে মেহেদি পাতার নির্যাস পৌঁছানো গুরুত্বপূর্ণ।
  • পুরো মাথাতে মেহেদির প্রলেপ লাগানোর পরে তিন থেকে চার ঘন্টা মাথা পানি দিয়ে না ধুয়ে ওভাবে রাখতে হবে।
  •  তিন থেকে চার ঘন্টা মেহেদী মাথাতে রাখার পরে হালকা কুসুম কুসুম গরম পানি দিয়ে আলতো ভাবে মাথা থেকে মেহেদী আলাদা করতে হবে।
  •  তবে চুল থেকে মেহেদি পরিষ্কার করতে কখনোই ঠান্ডা পানি ব্যবহার করবেন না কারণ ঠান্ডা পানি চুলের গোড়াতে গিয়ে এন্টিঅক্সিডেন্ট এবং প্রোটিন সরবরাহকারে উপাদান গুলোকে নষ্ট করে দিতে পারে ।
  • চুলে মেহেদি লাগানোর পর ২দিন পরে শ্যাম্পু করবেন নয়তো শ্যাম্পুর সাথে চুলের ঘ্রাণ নির্যাস এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পানির সাথে ধুয়ে যেতে পারে ।
  • আপনি চাইলে মেহেদির সাথে একটু লেবুর রস অথবা মুরগির ডিম ও দিতে পারেন তাহলে আপনার চুল আরও সিল্কি হবে।

অ্যালোভেরা জেল চুলে ব্যবহারের নিয়ম

চুলের রুক্ষতা শুষ্কতা দূর করতে চুলকে হাইড্রেটেড রাখতে হবে। চুলকে হাইড্রেট করার জন্য প্রয়োজন বিভিন্ন প্রকার জেল ব্যবহার করা। অ্যালোভেরা জেল ব্যবহারের মাধ্যমে চুলকে হাইড্রেট রাখা সম্ভব। কিন্তু অনেকেই জানে না সঠিক ভাবে অ্যালোভেরা জেল চুলে ব্যবহারের নিয়ম।

এলোভেরা দিয়ে চুলের রুক্ষতা দূর করতে প্রয়োজন সঠিকভাবে অ্যালোভেরার জেল সংগ্রহ করা। তাহলে চলুন এখন জেনে নেওয়া যাক অ্যালোভেরা জেল চুলের ব্যবহারের নিয়ম গুলো,

  • গাছ থেকে অ্যালোভেরার পাতা সংগ্রহ করার পরে পাতাগুলোকে পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।
  •  পাতাগুলোকে পরিষ্কার করে ধুয়ে নেওয়ার পরে একটি বাটিতে অ্যালোভেরার জেল সংগ্রহ করতে হবে।
  •  এর পরে আপনি আপনার চুলকে একটি শ্যাম্পু দিয়ে পরিষ্কার করে নেবেন যখন আপনার চুল হালকা শুকনো হয়ে যাবে তখন হাত দিয়ে মাথার সম্পূর্ণ চুলে অ্যালোভেরা জেল লাগাবেন।
  • অ্যালোভেরা জেল লাগানোর এক ঘণ্টা পরে শ্যাম্পু দিয়ে মাথা চুল পরিষ্কার করতে হবে ।
  • শ্যাম্পু করে ওঠার পরে চুল শুকিয়ে অ্যালোভেরার তেল ব্যবহার করতে হবে ।

এলোভেরা ও লেবু দিয়ে চুলের যত্ন

চুলের যত্নে এলোভেরা অর্থাৎ ধৃতকুমারীর ব্যবহার থেকেই রয়েছে। চুলে এলোভেরা বা ঘৃতকুমারী লাগালে চুলে রুক্ষতা দূর হয় চুলের আগা ভেঙে যাওয়ার রোগ থেকে চুল সুস্থ থাকে। এলোভেরা জেল চুলকে হাইড্রেটেড রাখে যার কারণে ঝলমলে এবং কালো কুচকুচে।

আরও পড়ুনঃ ত্বকের যত্নে নিম পাতার উপকারিতা 

শুধু যে এলোভেরা দিলে হবে চলে সেরকম নাই অ্যালোভেরার সাথে যদি লেবুর রস অথবা লেবুর খোসা বেটে দেওয়া হয় তাহলে চুলের মসৃণতা আরো বৃদ্ধি পায়। এছাড়াও চুলের শক্তি এবং পুষ্টি সরবরাহের জন্য প্রয়োজন ভিটামিন সি আর লেবুতে রয়েছে সাইট্রিক এসিড এবং ভিটামিন সি যার কারণে চুল হয় গোড়া থেকে মজবুত এবং পুষ্টিকর।

 অ্যালোভেরা এবং লেবু দিয়ে চুলের যত্ন করতে প্রয়োজন দুটি উপাদানের সঠিক পরিমাণ নেওয়া। এলোভেরা জেল সংগ্রহ করে তার তার সাথে লেবুর রস অথবা লেবুর খোসা বেটে চুলে লাগাতে হবে। অ্যালোভেরা ও লেবু চুলে লাগানোর পরে হালকা কুসুম কুসুম গরম পানি দিয়ে চুলকে শ্যাম্পু দিয়ে পরিষ্কার করে নিতে হয় ।

এলোভেরা দিয়ে চুল সিল্কি করার উপায়

আমরা সকলে আমাদের চুলকে সিল্কি করতে ভালোবাসে কারণ আমরা মহিলারা সবসময় সেলফি চুল ভালবাসে। চুলটা সিল্কি করতে প্রয়োজন এলোভেরার সঠিক ব্যবহার। এলোভেরা দিয়ে চুল সিল্কি করার উপায় অনেক রয়েছে তার মধ্যে সবথেকে সহজ এবং দ্রুত কার্যকরী উপায় হল এলোভেরা জেল এর সাথে হালকা পরিমাণ কন্ডিশনার যুক্ত করে তুলে লাগানো।

আপনি যদি প্রতিদিন অথবা সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন গোসলের পরে এলোভেরা জেল এবং কন্ডিশনার একসাথে মিশ্রিত করে আপনার তাহলে আপনার চুল হয়ে উঠবে সিলকে এবং ফুরফুরে। এছাড়াও গোসলের পরে চুলে এলোভেরা জেল লাগানোর পরে চুলের আগা ফেটে যাওয়ার রোগ দূর হয়ে যায়।

রাতে চুলে এলোভেরা ব্যবহার

চুলকে মসৃণ এবং ঝলমলে করার জন্য প্রয়োজন তিন বেলায় চুলের যত্নে এলোভেরা যুক্তকরা। আপনি তো এখন ভাবতে পারেন যে দিনে চুলের এলোভেরা জেল ব্যবহার করবে কিন্তু রাতে কিভাবে চলে এলোভেরা ব্যবহার করা সম্ভব?

 সম্ভব বন্ধুরা রাতে চলে এলোভেরা ব্যবহার করলে চুল প্রাণবন্ত এবং ঝলমলে থাকে এবং কখনো সেই চুলগুলো এলোমেলো হয়না।  রাতে চলে এলোভেরা ব্যবহারের সঠিক উপায় হল এলোভেরা স্প্রে তৈরি করা। আপনি চাইলে এলোভেরা স্প্রে বাজার থেকে কিন্তু পারেন অথবা নিজেও বাড়িতে অ্যালোভেরার স্প্রে বানিয়ে নিতে পারেন।

অ্যালোভেরার স্প্রে বানানোর জন্য এলোভেরা ভালোভাবে পরিষ্কার করে এলোভেরা জেল সংগ্রহ করতে হবে এবং তার সাথে আপনার ব্যবহারকিত নারিকেল তেল অথবা কিউট তেল একসাথে মিশ্রিত করে কিছুক্ষণ একটি সস প্যানে গরম করে নিতে হবে। তেলটি যখন ঠান্ডা হয়ে যাবে তখন একটি বোতলে ভরে সাথে একটি স্প্রেয়ার ব্যবহার করবেন। এই এলোভেরা জেলের প্রেটি প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর পূর্বে আপনার চুলের স্প্রে করবেন  তাহলে আপনার চুল হয়ে উঠবে সিল্কি এবং আপনার মাথার ত্বক ঠান্ডা থাকবে।

অ্যালোভেরা জেল চুলে ব্যবহারের উপকারিতা

অ্যালোভেরা জেল চুলের ব্যবহারের উপকারিতা রয়েছে অনেকগুলো কিন্তু আমরা অনেকেই সে উপকান্ত গুলো জানিনা। আমাদের বাড়িতে উপস্থিত ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরা দিয়ে খুব সহজে চুলের যত্ন নেওয়া যায় চলুন সেওগুলো জেনে নেওয়া যাক,

  • অ্যালোভেরা জেল চুলে ব্যবহার কারণে চুলের রূপকথা শুষ্কতা দূর হয়
  •  চুল হয়ে ওঠে ঝলমলে ঘন এবং কালো
  •  চুলের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায় এবং চুল দীর্ঘ লম্বা হয়।
  •  অ্যালোভেরা জেল চুলে ব্যবহার করলে চুল সিল্কি হয়ে ওঠে এবং চুলের আগা ফেটে যাওয়া সমস্যা থেকে পরিত্রান পাওয়া যায়।
  •  অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করলে মাথায় ত্বক ঠান্ডা থাকে এবং মাথার ত্বকের এলার্জি ফুসকুড়ি যাবতীয় পাওয়া যায়।
  • অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করার কারণে চুলের বাড়ন্ত গতি দ্রুত বৃদ্ধি পায় কারণ এলোভেরা জেলের উপস্থিতি এন্টি ইনফ্লামেটরি বৈশিষ্ট্য চুলের গোড়াতে রক্ত প্রবাহ বৃদ্ধি করে।
  • এছাড়াও চুলকে মশ্চারাইজ করতে এলোভেরা জেল খুব উপকারী কারণ চুল যদি ময়েশ্চারাইজ থাকে তখনই চলে বৃদ্ধি ভালো হয় ।
  • এছাড়াও চুলের যাবতীয় সমস্যা যেমন সূর্যের ক্ষতিকর আলোর কারণে চুলের সূক্ষ্মতা অতিরিক্ত ঘামের কারণে চুলে চিপ চিপে হওয়া থেকে রক্ষা করতে এলোভেরা জেল সবথেকে উত্তম একটি ঘরোয়া উপায়।

লেখকের মন্তব্য

প্রিয় পাঠক বন্ধু আজকের আর্টিকেলটির মাধ্যমে আমি আপনাদেরকে জানালাম চুলে মেহেদি পাতা লাগানোর নিয়ম এবং এলোভেরা জেল চুলে ব্যবহারের নিয়ম এছাড়াও অ্যালোভেরা জেল চুলে ব্যবহার করলে কি কি উপকার হয় ইত্যাদি বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য আলোচনা করেছি।

আশা করছি আজকের আর্টিকেলটি পড়ে আপনারা সকলে উপকৃত হবেন কারণ আমরা সকলে আমাদের চুল নিয়ে চিন্তিত থাকি। এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনি যদি উপকৃত হন তাহলে অবশ্যই আমাকে কমেন্ট করে জানাবেন এবং রূপচর্চা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য জানতে নিয়মিত আমার স্বাগতম বিডি ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন ধন্যবাদ।


এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

স্বাগতম বিডিরনীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url