১০ টি নখের কুনি দূর করার ঔষধের নাম - হাতের নখের ফাঙ্গাস দূর করার ঔষধ

গলা ব্যথার ওষুধের নামপ্রিয় পাঠক বন্ধু আপনি কে নখের কুনি দূর করার ঔষধের নাম এবং হাতের নখের ফাঙ্গাস দূর করার ওষুধ সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন?  যদি আপনি হাত পায়ের নখের কুনি দূর করার জন্য ওষুধ সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আপনি একদম ঠিক জায়গায় এসেছেন কারণ আজকে আমাদের আলোচনার বিষয় হলো নখের কুনি দূর করার ঔষধের নাম।

১০ টি নখের কুনি দূর করার ঔষধের নাম - হাতের নখের ফাঙ্গাস দূর করার ঔষধ

এছাড়াও আজকের আর্টিকেলটির মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন যে হাতের নখের ফাঙ্গাস দূর করার ঘরোয়া উপায় এবং কোন ভিটামিনের অভাবে নখের সমস্যা হয়। এছাড়াও নখ দেখে রোগ চেনার উপায় গুলো জানতে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ার জন্য অনুরোধ রইল ।

পোস্ট সুচিপত্রঃ  ১০ টি নখের কুনি দূর করার ঔষধের নাম-হাতের নখের ফাঙ্গাস দূর করার ঔষধ

.

পায়ের নখে কুনি কেন হয়?

নারী-পুরুষ ছোট বড় মধ্যবয়স্ক প্রায় সকলেরই পায়ের নখে কুনি হতে দেখা যায় কিন্তু  পায়ের নখে কুনি কেন হয় এই বিষয়ে আমরা জানিনা?  আমরা শুধু জানি যে পায়ের নখে কুনি হয় এবং উনি হলে ওষুধ খেতে হবে কিন্তু পায়ের নখ এখনই কেন হয় এবং কিভাবে সেগুলো থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব সেগুলো আমাদের জানা প্রয়োজন।

পায়ের নখে কুনি হওয়ার অনেকগুলো কারণ রয়েছে যেমন অতিরিক্ত হাঁটাচলা করা, পায়ের নখের মধ্যে ধুলাবালি অথবা মাটি প্রবেশ করা,  বেশি আটোসাটা জুতা বা হাই হিল পরিধান করা, নখের কুনিতে মাংস বৃদ্ধি পেলে পায়ের নখে কুনি হয় ,গর্ত করে নখ কাটা, ব্যাকটেরিয়া এবং ছত্রাকের সংক্রমণ, কোন ভারী বস্তুর সাথে আঘাত লাগলে, এবং যে সকল ব্যক্তির ডায়াবেটিস উচ্চ রক্তচাপ-জনিত সমস্যা রয়েছে তাদের পায়ের নখে কুনি হয়।

সম্প্রতিক ডাক্তাররা জানিয়েছেন যে উপরোক্ত কারণগুলোতে পায়ের নখে কুনি হয়। পাশাপাশি শরীরে ভিটামিনের অভাবেও  হাতের নখে কুনি হয়। শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণ আন্টি অক্সিডেন্ট, প্রোবায়োটিক, আন্টিইনফ্লেমেটরি, সাইট্রিক অ্যাসিড এর অভাব দেখা দিলেও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় পচন ধরে তার মধ্যে প্রধান হলো হাত এবং পায়ের নখের কুনি হওয়া।

এছাড়াও বর্ষাকালের স্যাঁত সাথে পানিতে অথবা উঠানের জীবাণুর উপর খালি পায়ে হাঁটাচলা করার কারণেও পায়ের নখে কুনিহয়। পরবর্তীতে এই কুনির জায়গাতে তুঁতে বা তেল পুড়িয়ে দেওয়ার ফলে এটি আরো মারাত্মক আকার ধারণ করে পুঁজ জমা হয়।

কোন ভিটামিনের অভাবে নখের সমস্যা হয়

হাত এবং পায়ের বুড়ো আঙ্গুলের নখে কুনি হওয়ার অনেকগুলো কারণ রয়েছে তার মধ্যে একটি প্রধান কারণ হলো শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিনের ঘাটতি। অনেকেই জানে না যে কোন ভিটামিনের অভাবে নখের সমস্যা হয় ?

আর পড়ুনঃ কোন ভিটামিনের অভাবে হাত পা জ্বালাপোড়া করে

মানব শরীরের যখনই পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন ডি,  ভিটামিন বি৬, ভিটামিন বি১২, এবং সাইট্রিক এসিড এর অভাব দেখা দেয় তখন শরীরের বিশেষ করে হাত এবং পায়ের বুড়ো আঙ্গুলের কুনির সমস্যা হয়। এছাড়াও নখের সমস্যা হওয়ার অনেকগুলো কারণ রয়েছে যেমন শরীরে অতিরিক্ত পরিমাণ এলার্জি, পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি না খাওয়া। যার ফলে হাতের এবং পায়ের বুড়ো আঙ্গুলের নখে ডিহাইড্রেশন হয় এবং এবং কুনির গোড়া থেকে রক্ত এবং পুঁজ বের হয়। 

নখ দেখে রোগ চেনার উপায়

শরীরের কোন জটিল রোগ বাসা বাঁধছে কিনা সেটি হাতের  এবং পায়ের নখ দেখলেই বোঝা যায়। ১১ টি উপায়ে নখ দেখে রোগ চেনা সম্ভব। চলুন জেনে নিই ১১টি নখ দেখে রোগ চেনার উপায় ,

  • নীল নখঃ হঠাৎ করে যদি আপনার নখের রং নীল হয়ে যায় তাহলে অবশ্যই এটি অনেক চিন্তা বিষয়। রক্তে অক্সিজেনের পরিমাণ কমে গেলে হাতের এবং পায়ের নখ নীল হয়। এছাড়াও শ্বাসকষ্ট,বুকে ব্যথা, হার্টের সমস্যা জনিত রোগের উপসর্গ হলো হাতের নখ নীল হয়ে যাওয়া।
  • নখে লম্বা দাগ হওয়াঃ হাত অথবা পায়ের নখে যদি লম্বার দাগ দেখা দেয় তাহলে অবশ্যই এটি অনেক চিন্তার বিষয় কারণ নখের লম্বা দাগ হওয়া স্কিন ক্যান্সারের কারণ। তাই নখে লম্বা দাগ দেখা দিলে অতিসত্বর ডাক্তারে পরামর্শ নেওয়া উচিত।
  • নখে ছোট সাদা দাগঃ নখের মাঝখানে যদি সাদা ছোট ছোট দাগ দেখা দেয় তাহলে এটি গুরুতর কোন চিন্তার বিষয় নয় কারণ এটি এটি হওয়া স্বাভাবিক।
  • নখ মাঝখান দিয়ে দেবে যাওয়াঃ শরীরে আয়রনের ঘাটতি দেখা দিলে নখ মাঝখান দিয়ে ভেতর দিকে দেবে যায়।
  • নখ সবুজ হয়ে যাওয়াঃ সুডোমোনাস ব্যাকটেরিয়া দ্বারা যখন হাত এবং পায়ে্র নখ আক্রান্ত হয় তখন নখের মাঝখানে সবুজ ছোপ ছোপ দাগ পড়ে। 
  • নখের মাথা ভেঙে আসাঃ নখের মাথা ভেঙ্গে আসার কারণ হলো নখ পাতলা হয়ে যাওয়া। ডিটারজেন্ট দিয়ে কাপড় থালা-বাসন ঘর মোছা ইত্যাদি কারণে নখের মাথা ভেঙে আসে।
  • নখের আশেপাশের মাংস লাল হয়ে যাওয়াঃ নখের আশেপাশের মাংস লাল হয়ে যাওয়ার অনেকগুলো কারণ রয়েছে যেমন আইরন, থাইরয়েডের অভাব। নখের আশেপাশের মাংস লাল হয়ে যাওয়ার কারণে কানেক্টিভ টিস্যুগুলো ক্ষতি হতে থাকে তাই ডাক্তারের পরামর্শ মেনে ওষুধ খাওয়া উচিত।
  • নখ হলুদ হয়ে যাওয়াঃ  নখ হলুদ হয়ে যায় মূলত ডায়াবেটিস এবং ফাংগাল ইনফেকশনের কারণে।
  • নখ ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়াঃ নখ ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়ার অনেকগুলো কারণ রয়েছে যেমন রক্তশূন্যতা, পুষ্টির অভাব, লিভারজনিত সমস্যা কারণে নখ ফ্যাকাশে হয়ে যায়।

 ১০ টি নখের কুনি দূর করার ঔষধের নাম-হাতের নখের ফাঙ্গাস দূর করার ঔষধ

নখের কুনি অথবা হাতের নখের ফাঙ্গাস দূর করার ১০টি ওষুধের নাম হলো ,

  • Terbison 1% Cream
  • Fluconazole
  • Terbinafine
  • Itraconazole
  • Telfin Cream
  • Xfin 1% Cream
  • Deramasim 1% cream
  • Fintrix 1% Cream
  • Terbiderm 1 % cream
  • Haparoxi 1 % Cream

নখের কুনি দূর করার ঘরোয়া উপায়- হাতের নখের ফাঙ্গাস দূর করার উপায়

নখের কুনির ব্যথা এবং নখের ফাঙ্গাসের ব্যথা অসহনীয় একটি ব্যথা। এই ব্যথা থেকে উপশম পেতে ডাক্তারের কাছ থেকে বিভিন্ন রকমের ওষুধ সেবন করে থাকি। কিন্তু আমরা যদি একটু সতর্ক হয় তাহলে নখের  কুনি দূর করার ঘরোয়া উপায় গুলো জেনে খুব সহজেই হাতের নখের ফাঙ্গাস দূর করতে পারবো।

আরও পড়ুনঃ পাইলসের ফোলা কমানোর ঘরোয়া উপায়

আমাদের বাড়িতে উপস্থিত কিছু ঘরোয়া উপাদান দিয়েই হাতের নখের কুনি এবং নখের ফাঙ্গাস দূর করতে পারি। চলুন জেনে নেই সেই ঘরোয়া উপায় যেগুলো অবলম্বন করে আমরা হাতের নখের ফাঙ্গাস থেকে রক্ষা পেতে পারি। 

নারিকেল তেল 

নখের কুনি অথবা নখের ফাঙ্গাস থেকে রক্ষা পেতেন নারিকেল তেল খুব উপকারী।নারিকেল তেলে উপস্থিত এন্টি অক্সিডেন্ট এবং ফাঙ্গাস নখের সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে।

বেকিং সোডা

শরীর ডিহাইড্রেশন হয়ে যাওয়ার কারণে নখের কুনি হয় এবং হাত পায়ের নখে ফাঙ্গাস হয় ।বেকিং সোডা শরীরের অতিরিক্ত ডিহাইড্রেশনকে কমাতে সাহায্য করে।

অলিভ অয়েল 

নখের কোণে নখের পাঙ্গাস নখের ইনফেকশন জনিত যাবতীয় সমস্যার সমাধানে অলিভ অয়েল ক্ষোভ উপকারী একটি উপাদান। অলিভ অয়েলে উপস্থিত এন্ড অক্সিডেন্ট,ভিটামিন সি সমৃদ্ধ আন্টি ইনফ্লামেটরি বৈশিষ্ট্য দ্রুত কুনি রোগ সারিয়ে তোলে। 

রসুন

রসুন প্রাকৃতিকভাবে অধিক পরিমাণ আইনটি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ উপাদা।এটি যেমন রান্নার স্বাদ বৃদ্ধি করে ঠিক তেমনে নখের ফাঙ্গাস এবং নখের কুনির ব্যথাও দ্রুত উপশম ঘটা।

সরিষার তেল

সরিষার তেল যে কোন রকমের আঘাত ক্ষত সারাতে ম্যাজিকের মত কাজ করে। বুড়ো আঙ্গুলে আক্রান্ত স্থানে গরম সরিষার তেল লাগালে ক্ষতিকারক জীবাণু ধ্বংস হয় এবং দ্রুত ঘা শুকিয়ে যায়।

পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা

পায়ের নখের পাঙ্গাস অথবা নখের কোনি থেকে দ্রুত আরোগ্য পেতে হলে সব সময় আক্রান্ত স্থানকে পরিষ্কারপরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। আক্রান্ত স্থানে পানি লাগানো থেকে বিরত থাকতে হবে সব সময় শুষ্ক রাখার চেষ্টা করতে হবে। তাহলে দ্রুত নখের কুনি এবং হাতের নখের ফাঙ্গাস সেরে যাবে।

লেখক এর শেষ মন্তব্য 

প্রিয় পাঠক বন্ধু আজকের আর্টিকেলটির মাধ্যমে আমি আপনাদেরকে নখের কুনি দূর করার ঔষধের নাম ও হাতের নখের ফাঙ্গাস দূর করার ঔষধ সম্পর্কে জানিয়েছি। আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনি আপনার নখের যাবতীয় সমস্যা সমাধান করতে পারবেন এবং ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহণ করবেন।

স্বাস্থ্য সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য জানতে এবং শরীরকে সুস্থ রাখতে প্রয়োজনীয় সকল ট্রিকস জানতে নিয়মিত আমার স্বাগতম বিডি ওয়েবসাইটটি ভিজিট করেবেন ধন্যবাদ।


এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

স্বাগতম বিডিরনীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url